মহিলা কি ঈদের নামাজ পড়তে পারবে/নিয়ম ও নিয়ত ২০২২

মহিলাদের ঈদের নামাজ,মহিলারা কি ঈদের নামাজ পড়তে পারবে,নারীদের ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম,মহিলাদের ঈদের নামাজের নিয়ম,মহিলাদের ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম ও নিয়ত,মহিলাদের ঈদের নামাজের নিয়ত

মহিলাদের ঈদের নামাজ

আসসালামু আলাইকুম ভিজিটর বন্ধুরা আসা kori ভালো আছেন। আলহামদুলিল্লাহ আমি ও ভালো আছি।আজকে আমরা জানবো। মহিলাদের ঈদের নামাজ। হজরত উম্মে আতিয়া রাদিয়াল্লাহু আনহা বর্ণনা koren, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাদেরকে এ মর্মে আদেশ করেছেন, amra যেন মহিলাদেরকে ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহাতে নামাজের জন্য বের হয় এবং নামাজে অংশগ্রহণ করেন। পরিণত বয়স্কা, ঋতুবতী o গৃহবাসিনীসহ সবাই। তবে ঋতুবতী মেয়েরা নামাজ আদায় থেকে বিরত থাকবে তবে কল্যাণ o মুসলিমদের দোয়ায় অংশ নিবে। তিনি জিজ্ঞেস করলেন, হে আল্লাহর রাসুল ! আমাদের মাঝে কারো karo ওড়না নেই। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, সে তার অন্য বোন থেকে ওড়না niya পরিধান করবে।’ (মুসলিম)

মহিলারা কি ঈদের নামাজ পড়তে পারবে

ইসলাম প্রিয় বন্ধুরা akn আপনাদেরকে জানাবো। 

মহিলারা কি ঈদের নামাজ পড়তে পারবেমহিলাদের ঈদের নামাজ সম্পর্কে হাদিছে ki বলে আমরা এখন তা জানবোঃ ‘উম্মে আতিয়া (রাঃ) থেকে বর্ণিত তিনি বলেন : আমাদেরকে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আদেশ করেছেন amra যেন মহিলাদেরকে ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহাতে সালাতের জন্য বের করে দেই ; পরিণত বয়স্কা, ঋতুবতী ও গৃহবাসিনী সহ সকলকেই। কিন্তু ঋতুবতী মেয়েরা (ঈদগাহে উপস্থিত হয়ে) salat আদায় থেকে বিরত থাকবে তবে কল্যাণ ও মুসলিমদের দোয়ায় অংশ নিবে। তিনি জিজ্ঞেস korlen, হে আল্লাহর রাসূল ! আমাদের মাঝে কারো কারো ওড়না নেই। (যা পরিধান করে amra ঈদের সালাতে যেতে পারি) রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, সে তার অন্য বোন থেকে ওড়না niya পরিধান করবে।’ (-মুসলিম)

অর্থাৎ সকল নারী : বালিকা, তরুণী, বৃদ্ধা ,কুমারী, বিবাহিত , অবিবাহিত এমনকি ঋতুবতী হলে o ঈদগাহে যেতে আদেশ করেছেন । তবে ঋতুবতী নারীরা নামাযে অংশ নিবে na তারা শুধু দোআতে অংশ নিবে

নারীদের ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম | মহিলাদের ঈদের নামাজের নিয়ম

আজকে amra জানবো, নারীদের ঈদের নামাজ পড়ার নিয়মমহিলাদের ঈদের নামাজের নিয়ম।আজকে আমরা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে কথা বলবো। তাই ভালোভাবে পড়ো o বুঝুন। হানাফি মাজহাব মতে, যদি কোনো নারী ঈদের নামাজ পড়ে তবে তা নফল hobe। আর নফল নামাজ জামাআতে পড়া মাকরূহ। সুতরাং ফেতনার আশংকায় নারীদের ঈদের নামাজ আদায় করা o মাকরূহ।মহিলাদের ঈদের নামাজের নিয়ম।নারীদের যদি ঈদের জামাতে অংশগ্রহণের জন্য আলাদা kunu ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়; সেক্ষেত্রে নারীরাও ঈদের জামাতে অংশগ্রহণ korte পারবে। ঈদের জামাতে নারীদের অংশগ্রহণ সম্পর্কে প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম অনুমোদন দেননি বরং ta আদায়ের নির্দেশ দিয়েছেন। তবে তা ওয়াজিব বা বাধ্যতামূলক করা হয়নি, kintu তাগিদ দেয়া হয়েছে।

মহিলাদের ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম ও নিয়ত | মহিলাদের ঈদের নামাজের নিয়ত

ইসলাম প্রিয় ভাই ও বোনেরা আজকে amra অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় নিয়ে কথা বলব তা হলোঃ মহিলাদের ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম o নিয়তমহিলাদের ঈদের নামাজের নিয়ত 

মহিলাদের নামাজের modde যেসব বড় somossah দেখা দেয় tah ফরজের মধ্যেই বেশির ভাগ। যেমন- সতর ঢাকা একটি ফরজ। মহিলাদের সতর মুখমণ্ডল, হাতের কবজি এবং payar গিরার নিচের অংশ। নামাজের somoi এই সতর পুরাপুরি ঢেকে রাখা একটি ফরজ তা বদ্ধ ঘরেই হোক bah লোকালয়ে সবার সামনেই হোক। নামাজের সময় দেখা যায় আমাদের প্রচলিত শাড়ি পরিধানের কারনে হাত বা পেটের অংশ বা মাথার চুলের অংশ deka যেতে থাকে। অত্যন্ত সতর্কতার সাথে এমন কাপড় পরিধান করে নামাজ পড়া যেন aie অংশ গুলো দেখা না যায়। যেমন- হজ্জে যাওয়ার সময় মহিলারা jaa কাপড় পড়েন তাতে সতর টা পুরাপুরি ঢেকে থাকে। এই জন্য উত্তম হচ্ছে নামাজের জন্য আলাদা কাপড় রাখা। এবং ভাল ভাবে বুঝে নেই যে এই ফরজ আদায় ছাড়া নামাজ আদায় হবে na। যেমন অজু ছাড়া নামাজ আদায় হয়না তেমনি সতর খলা রেখে নামাজ পড়লেও সেই নামাজ আদায় হবেনা।aie সব ঈদের নামাজের নিয়ম/নিয়তনিয়ত । নাওয়াইতু আন উসাল্লিয়া লিল্লাহি তায়ালা রাকয়াতাই সালাতি ঈদিল ফিতর, maya ছিত্তাতি তাকবীরাতি ওয়াজিবুল্লাহি তায়ালা ইকতাদাইতু বিহাযাল imam, মুতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু।

Tags: মহিলাদের ঈদের নামাজ,মহিলারা কি ঈদের নামাজ পড়তে পারবে,নারীদের ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম,মহিলাদের ঈদের নামাজের নিয়ম,মহিলাদের ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম ও নিয়ত,মহিলাদের ঈদের নামাজের নিয়ত

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url

About Of Admin

Lorem Ipsum is simply dummy text of the printing and typesetting industry. Lorem Ipsum has been the industry's standard dummy text ever since the 1500s, when an unknown printer took a galley of type and scrambled it to make a type specimen book. It has survived not only five centuries, but also the leap into electronic typesetting, remaining essentially unchanged. It was popularised in the 1960s with the release of Letraset sheets containing Lorem Ipsum passages, and more recently with desktop publishing software like Aldus PageMaker including versions of Lorem Ipsum.

Let's Get Connected:-
Twitter | Facebook | Linkedin | Pinterest